কলঙ্ক

নক্ষত্র ভেঙ্গে আমি যখন গ্রহ গড়তে  যাই
গ্রহের গায়ে ক্ষত হয়ে যায় ,
রাস্তা দিয়ে  ছুটে যায় প্রতিবাদী মিছিল।
চাঁদের গায়ে দেখি কলঙ্কের সুরমা পরিয়ে দিয়েছে কেউ ,
নিঃশব্দে খুঁজে বেড়াই তখন সেই পোষ মানা চাঁদ,
কোথায় যেন হারিয়ে যায় কলঙ্কের দাগে।
এভাবেই হারিয়ে যায় মানুষ
সে ছায়া মানুষ হয়ে নিংড়ে খায় জীবন,
কেউ তাকে আর অনুসরণ করে না,
স্ত্রী পুত্র কন্যা স্বপ্নারোহী ছায়ালোকে হয় বিলীন,
খোদাই হয় দুঃখের ত্রিভূজ।
পাশ দিয়ে তাকে ধেয়ে চলে যায় নগর কীর্তিনের সুর,
জীবন সায়াহ্নে সে ভয় পায় সেই সুর,
লিখে রাখে জীবন এই বাঁকা পথের ইতিহাস।
 

 

 

 

Share on Facebook
Share on Twitter
Please reload

Featured Posts